সেনা আইন অনুযায়ী জিয়ার মরণোত্তর বিচার হওয়া উচিত: নানক

0
163

নিজস্ব প্রতিবেদক::এই দেশের গণতন্ত্র এবং সকল শৃঙ্খলাকে ধ্বংস করে দিয়েছেন জেনারেল জিয়াউর রহমান। তাই সেনা আইন অনুযায়ী জিয়ার মরণোত্তর বিচার হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক।

তিনি বলেন, আর্মির চিফ হয়ে জেনারেল জিয়াউর রহমান সেনাবাহিনীর কোন রুলসে দল গঠন করলেন? এদেশের নির্বাচন ও নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে গিয়েছিল বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ আয়াজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সোমবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
নানক বলেন, ৫০ বছর আগে বঙ্গবন্ধু যে স্বপ্ন দেখেছিলেন তার কন্যা শেখ হাসিনা একে একে তা বাস্তবায়ন করেছেন। শেখ হাসিনা আছেন বলেই আজ বাংলাদেশের মানুষ নির্বিঘ্নে ঘুমাতে পারে। সেই আস্থা রয়েছে বলেই জনতার রায়ে তিনি চতুর্থবারের মতো রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আছেন।

বাংলাদেশ যখন উন্নয়নের মাধ্যমে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, তখন দেশের একটি রাজনৈতিক দল বিএনপি তা দেখতে পায় না। তাদের সময় দেশের সংবিধান, প্রশাসন, নির্বাচন ব্যবস্থা সবকিছুই ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। তাই তারা উন্নয়ন দেখতে পায় না।
সভায় দলের আরেক প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুর রহমান বলেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার ছেলে হিসেবে আমরা সকলেই শপথ নেওয়া উচিত, আমরা নিজেরাই দুর্নীতিমুক্ত হবো।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দুর্নীতিমুক্ত দেশ উপহার দিব। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের ইস্যু নিয়ে তিনি বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বিরোধিতা করছেন তাদের লক্ষ্য কিন্তু বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ছিল না, তাদের মূল লক্ষ্য ছিল এই ভাস্কর্য ইস্যুকে কেন্দ্র করে শেখ হাসিনা সরকারের পতন ঘটানো। এজন্য লন্ডন থেকে তারেক জিয়া অর্থ পাঠিয়েছন বলেও দাবি করেন তিনি।
সভায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, অনেকেই সেদিন ভেবেছিলেন বঙ্গবন্ধু ফিরে আসবেন না। কিন্তু বঙ্গবন্ধু ফিরে আসার পর তার দূরদর্শিতার কারণে মাত্র তিন মাসের মধ্যে ভারতের সৈন্য প্রত্যাহার হয়।

বঙ্গবন্ধু যখন এ দেশ পুনর্গঠনের মাধ্যমে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন তখন স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি তাকে নির্মমভাবে হত্যা করে। এখন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আবার ঘুরে দাঁড়িয়েছে।
স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় সঞ্চালনা করে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আফজাল রহমান বাবু। সভায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহাণগরের নেতাকর্মীরা অংশগ্রহণ করেন।

উত্তর দিন

দয়া করে এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন